মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ২৭ এপ্রিল ২০২১

১. জেবিসি মাসিক সঞ্চয়ী স্কীম (লাভসহ) টেবিল নং-৬১”

এই বীমা পরিকল্পনাটি স্বল্প আয়ের মানুষ-কৃষক, শ্রমিক, সমবায়ী, পশুপালক, কামার-কুমার,গার্মেন্টস শ্রমিক, রিক্সাওয়ালা সহ সকল শ্রেণীর বীমাগ্রাহক বিশেষ করে দেশের মহিলাদের-কে জীবন বীমার সুবিধা পৌঁছে দেওয়ার জন্য জীবন বীমা কর্পোরেশন ‘‘জেবিসি মাসিক সঞ্চয়ী স্কীম (লাভসহ) টেবিল নং-৬১” প্রবর্তন করেছে। এই স্কীম চালুর ফলে দেশের আপামর জনগণ মাসিক কিস্তেিত  স্বল্প প্রিমিয়াম প্রদানের মাধ্যমে বীমার সুবিধা গ্রহণ করতে পারবে অপরদিকে তাদের অকাল মৃত্যুতে তাদের পরিবার আর্থিক নিরাপত্তা পাবে। সাথে সাথে মেয়াদপূর্তীতে লাভসহ টাকা পেয়ে ভবিষ্যতে আর্থিক চাহিদা মিটাতে পারবে।

          এই বীমার বৈশিষ্ট্য নিম্নরূপঃ-

  • মেয়াদ সর্বনিম্ন ১২ বছর হতে সর্বোচ্চ ১৬ বছর পর্যন্ত।  
  • মাসিক কিস্তিতে প্রিমিয়াম প্রদান করতে পারবে।
  • সর্বনিম্ন মাসিক জমা ১০০/= টাকা, সর্বোচ্চ মাসিক জমার পরিমাণ টাকা ১৫০০/= (এক  হাজার পাঁচশত টাকা)। সর্বোচ্চ এক বছরের (১২ মাসের টাকা) প্রিমিয়াম অগ্রিম প্রদান করতে পারবে।
  • সর্বনিম্ন প্রবেশকালীণ বয়স ১৮ বছর, সর্বোচ্চ প্রবেশকালীণ বয়স ৪৮ বছর। মেয়াদপূর্তীকালীণ বয়স  ৬০ বছরের বেশী হবে না। নতুন এই স্কীমের জন্য শুধু মাত্র একটি নির্ধারিত ফরম পূরণ করতে হবে। 
  • প্রস্তাবপত্রের সাথে বয়সের  প্রমানক অবশ্যই দাখিল করতে হবে।
  • কোন ডাক্তারী পরীক্ষার রির্পোট এই বীমায় প্রদান করতে হবে না ।
  • মেয়াদ শেষে বীমাকৃত অর্থ (লাভসহ) প্রদান । বীমাগ্রাহকের অকাল মৃত্যু হলে বীমাকৃত অর্থ অর্জিত লাভসহ মনোনীতক-কে প্রদান করা হবে।
  • প্রদত্ত প্রিমিয়ামের উপর আয়কর রেয়াত পাওয়া যায়।
  • এই বীমায় ২ (দুই) বছর প্রিমিয়াম প্রদানের পর সমর্পণ ও ঋণ গ্রহণ করা যাবে।

 

মাসিক কিস্তি ও বীমা অংকের পরিমাণ নিম্নে দেওয়া হ’লঃ-

মাসিক প্রিমিয়াম

মেয়াদ

বীমা অংক

১০০

১২

১৩৫০০

১০০

১৩

১৫০০০

১০০

১৪

১৬০০০

১০০

১৫

১৭৬০০

১০০

১৬

১৮৫০০

 

২. জেবিসি প্রত্যাশিত মাসিক সঞ্চয়ী স্কিম (লাভ সহ)টেবিল নং-৬২”

এই বীমা পরিকল্পনাটি স্বল্প আয়ের মানুষ কৃষক, শ্রমিক সমাবায়ী, কামার-কুমার, পশুপালক গার্মেন্টস শ্রমিক রিক্সাওয়ালাসহ সকল শ্রেণীর বীমা গ্রাহক বিশেষ করে দেশের মহিলাদেরকে জীবন বীমার সুবিধা পৌঁছে দেয়ার জন্য জীবন বীমা কর্পোরেশন “প্রত্যাশিত মাসিক সঞ্চয়ী স্কিম (লাভ সহ) টেবিল নং-৬২” প্রবর্তন করেছে। এই স্কিমের অন্যতম সুবিধা হল বীমার মেয়াদ অর্ধেক পার হবার পর বীমা অংকের ৩০% কিস্তিতে প্রদান করা হবে, ফলে ভবিষ্যতে আর্থিক প্রয়োজন মেয়াদপূর্তির পূর্বে মেটাতে সক্ষম হবে। এই স্কিম চালুর ফলে দেশের আপামর জনগণ মাসিক কিস্তিতে স্বল্প প্রিমিয়াম প্রদানের মাধ্যমে বীমার সুবিধা গ্রহণ করতে পারবে। অপরদিকে তাদের অকাল মৃত্যুতে তাদের পরিবার আর্থিক নিরাপত্তা পাবে। সাথে সাথে মেয়াদপূর্তিতে লাভ টাকা পেয়ে ভবিষ্যতে আর্থিক চাহিদা মেটাতে পারবে।

নতুন স্কিম এর বৈশিষ্ট্য নিরূপণঃ

০১। মেয়াদ সর্বনিম্ন ১২ বছর হতে সর্বোচ্চ ১৬ বছর পর্যন্ত।

০২। মাসিক কিস্তিতে প্রিমিয়াম প্রদান করতে পারবে।

০৩। সর্বনিম্ন মাসিক জমা ১০০/- টাকা সর্বোচ্চ পরিমাণ টাকা ১৫০০/- টাকা, সর্বোচ্চ এক বছরের (১২ মাসের) টাকা প্রিমিয়াম অগ্রিম প্রদান করতে পারবে।

০৪।  সর্বোচ্চ প্রবেশকালীণ বয়স ১২ বছর মেয়াদের ক্ষেত্রে ৪৮ বছর এবং ১৬ বছর মেয়াদের ক্ষেত্রে ৪৪ বছর। মেয়াদ পূর্ণকালীণ বয়স ৬০ বছরের বেশি হবে না।

০৫। এই বীমার জন্য শুধুমাত্র একটি নির্ধারিত ফরম পূরণ করতে হবে। প্রস্তাবপত্রের সাথে বয়সের প্রমাণক অবশ্যই দাখিল করতে হবে।

০৬। কোন ডাক্তারি পরীক্ষার রিপোর্ট প্রদান করতে হবে না

০৭। ১২ বছর মেয়াদের ক্ষেত্রে প্রথম ৬ বছর নিয়মিত পরিশোধ করার পর বীমা অংকের ৩০% প্রদান করা হবে। ১৬ বছর মেয়াদের ক্ষেত্রে প্রথম ৮ বছর পরিশোধ করার পর বীমা অংকের ৩০% প্রদান করা হবে।

০৮। নিয়মিত প্রিমিয়াম পরিশোধ করলে মেযাদ পূর্তীতে অবশিষ্ট বীমা অংক অর্জিত লাভসহ প্রদান করা হবে।

০৯। প্রথম কিস্তির টাকা প্রদান করা সত্ত্বেও পলিসি চালু থাকা অবস্থায় মেয়াদের মধ্যে বীমা গ্রাহকের অকাল মৃত্যু হলে পুরো বীমা অংক অর্জিত লাভসহ প্রদান করা হবে।

১০। প্রদত্ত প্রিমিয়াম এর উপর আয়কর রেয়াত পাওয়া যায়। বীমা দাবির টাকা নির্দিষ্ট সীমা পর্যন্ত আয়করমুক্ত।

১১। এই বীমায় দুই বছর প্রিমিয়াম প্রদানের পর সমর্পণ ও ঋণ গ্রহণ করা যাবে।

 মাসিক কিস্তি ও বীমা অংকের পরিমাণ নিম্নে দেওয়া হল

মাসিক প্রিমিয়াম

মেয়াদ

বীমা অংক

১০০

১২

১২,৫০০

১০০

১৬

১৭,৫০০

 

৩. সামাজিক নিরাপত্তা বীমা (লাভসহ),টেবিল নং-৬৩

এই বীমা পরিকল্পনাটি স্বল্প আয়ের মানুষ-কৃষক, শ্রমিক, সমবায়ী, পশুপালক, কামার-কুমার,গার্মেন্টস শ্রমিক, রিক্সাওয়ালা সহ সকল শ্রেণীর বীমাগ্রাহক বিশেষ করে দেশের মহিলাদের-কে জীবন বীমার সুবিধা পৌঁছে দেওয়ার জন্য জীবন বীমা কর্পোরেশন ‘‘ সামাজিক নিরাপত্তা বীমা (লাভসহ),টেবিল নং-৬৩” Social Security Scheme (With Profit) চালু করেছে। এই স্কীম চালুর মাধ্যমে জীবন বীমা কর্পোরেশন দেশের জনগণের প্রতি সামাজিক দায়িত্ব হিসাবে নিম্নবৃত্ত হতে মধ্যবিত্ত সবাই যেন বীমা সুবিধা পেতে পারে, ভবিষ্যতের জন্য আকর্ষনীয় সঞ্চয় করতে পারে এবং বীমাগ্রহীতার অকাল মৃত্যুতে পরিবারের আর্থিক নিরাপত্তার ব্যবস্থা গ্রহণ করতে পারে সেই জন্য সামাজিক নিরাপত্তা স্কিম চালু করা হয়েছে।

       এই বীমার সুবিধাদি ও শর্তাবলীঃ-

  • মেয়াদ সর্বনিম্ন ১০ বছর এবং সর্বোচ্চ ১৫ বছর।
  • মাসিক কিস্তিতে প্রিমিয়াম প্রদান করতে পারবে।
  • সর্বনিম্ন জমা ১০০/= (একশত টাকা) সর্বোচ্চ মাসিক জমা ৫,০০০/= (পাঁচ হাজার টাকা) সর্বোচ্চ এক বছরে (১২ মাসের টাকা) প্রিমিয়াম অগ্রিম জমা করতে পারবে।
  • সর্বনিম্ন প্রবেশকালীণ বয়স ১৮ বছর, সর্বোচ্চ প্রবেশকালীণ বয়স ৪৫ বছর। মেয়াদপূর্তীকালীণ বয়স ৬০ বছরের বেশী হবে না। নতুন এই স্কিমের জন্য শুধুমাত্র একটি নির্ধারিত ফরম পূরণ করতে হবে।
  • প্রস্তাবপত্রের সাথে বয়সের প্রমাণক অবশ্যই দাখিল করতে হবে।
  • কোন ডাক্তারী পরীক্ষার রিপোর্ট এই বীমায় প্রদান করতে হবে না।
  • মেয়াদ শেষে বীমাকৃত অর্থ (লাভসহ) প্রদান। বীমাগ্রাহকের অকাল মৃত্যু হলে বীমাকৃত অর্থ অর্জিত লাভসহ মনোনীতককে প্রদান করা হবে।
  • প্রদত্ত প্রিমিয়ামের উপর আয়কর রেয়াত পাওয়া যায়।
  • এই বীমায় ২ (দুই) বছর প্রিমিয়াম প্রদানের পর সমর্পণ ও ঋণ গ্রহণ করা যাবে।

                                                            

          স্কিমটির প্রিমিয়াম রেইট নিম্নরূপঃ-

          মাসিক প্রিমিয়াম

(টাকার) মেয়াদ (বছর)

বীমা অংক (টাকা)

১০০

১০

১২,০০০

১০০

১১

১৩,২০০

১০০

১২

১৪,৪০০

১০০

১৩

১৫,৬০০

১০০

১৪

১৬,৮০০

১০০

১৫

১৮,০০০

 

৪. প্রমিলা ডি.পি.এস স্কিম (লাভসহ)-টেবিল ৬৪

বাংলাদেশের মোট জনসংখ্যার অর্ধেক নারী। নারীদের অধিকাংশ গ্রামে বাস করে। তাদের বেশীর ভাগ অল্প শিক্ষিত এবং স্বাধীন আয় নেই। আবার কিছু সংখ্যক আছেন যারা উচ্চ শিক্ষিত এবং উচ্চবিত্ত। অল্প শিক্ষিত ও উচ্চ শিক্ষিতসহ সকল নারীর অর্থনৈতিক,রাজনৈতিক, সামাজিক ও প্রশাসনিক ক্ষমতায়ন প্রয়োজন। একই সাথে বীমা নীতিতে বীমায় নারীর বিষয়ে গুরুত্ব প্রদান করা হয়েছে। জীবন বীমা কর্পোরেশন নারীর অর্থনৈতিক, রাজনৈতিক, সামাজিক ও প্রশাসনিক ক্ষমতায়নের লক্ষ্যে এবং বীমা নীতির গুরুত্ব অনুধাবন করে নারীদের জন্য বিশেষ সুযোগ সুবিধা সম্বলিত একটি নতুন স্কিম প্রণয়ণ করতে যাচ্ছে।

বৈশিষ্ট্য:

১।     এ বীমার নাম প্রমিলা ডিপিএস স্কিম হলেও পুরুষ এবং মহিলা উভয়েই এ বীমা গ্রহণ করতে পারবেন ।

২।     এ বীমায় মহিলা জীবনের জন্য প্রচলিত প্রথম গর্ভধারণ ধারা প্রযোজ্য হবে না ।

৩।     মাসিক কিস্তিতে প্রিমিয়াম জমা দিতে হবে। তবে একবারে সর্বোচ্চ এক বছরের (১২ মাসের) প্রিমিয়াম অগ্রিম   জমা করা যাবে।

৪।      সর্বনিম্ন ৫ বছর হতে সর্বোচ্চ ১৫ বছরের মধ্যে যে কোন মেয়াদে এ বীমা পলিসি গ্রহণ করা যাবে।

৫।     সর্বনিম্ন  প্রবেশকালীন বয়স ১৮ বছর, সর্বোচ্চ প্রবেশকালীন বয়স ৫৫ বছর। মেয়াদপূর্তীকালীন বয়স ৬০ বছরের বেশি হবে না।

নতুন এই স্কিমের জন্য প্রস্তাবপত্র হিসেবে শুধুমাত্র একটি নির্ধারিত ফরম পূরণ  করতে হবে। প্রস্তাবপত্রের সাথে বয়সের প্রমাণক অবশ্যই দাখিল করতে হবে।

৬।     কোন ডাক্তারি পরীক্ষার রিপোর্ট এই বীমায় প্রদান করতে হবে না।

৭।      সর্বনিম্ন  মাসিক জমা টাকা ১০০/- (একশত) সর্বোচ্চ মাসিক জমা টাকা ১০,০০০/- (দশ হাজার)।

৮।     মেয়াদ শেষে বীমাকৃত অর্থ (লাভসহ) বীমাগ্রাহকে প্রদান। বীমাগ্রাহকের অকাল মৃত্যু হলে বীমাকৃত অর্থ অর্জিত লাভসহ মনোনীতককে প্রদান করা হবে।

৯।      প্রদত্ত প্রিমিয়ামের উপর আয়কর রেয়াত পাওয়া যাবে।

১০।    এই বীমায় সমর্পণ ও ঋণ গ্রহণ করা যাবে।

১১।    এ বীমায় প্রিমিয়াম দেয় পদ্ধতিতে শুধু অপশন “সি” প্রযোজ্য হবে।

১২।    বড় অংকের বীমা এবং দেয় পদ্ধতির উপর এ বীমায় কোন রিবেট প্রদান করা হবে না।

 

৫.গ্রামীণ জীবন বীমা (লাভসহ) প্ল্যান-৯১

বাংলাদেশের স্বল্প আয়ের মানুষ, কৃষক-শ্রমিক, সমবায়ী পশুপালক, মৎস্যজীবী, কামার, কুমার, তাঁতীসহ যে কোন ব্যক্তি এ পরিকল্পনার আওতায় ন্যূনতম ব্যয়ে জীবন বীমার কল্যাণ লাভ করতে পারেন। গ্রামীণ জীবন বীমা পরিকল্পনার মূল লক্ষ্য হচ্ছে শ্রমজীবী মেহনতী মানুষের আর্থিক নিরাপত্তার ব্যবস্থা করা এবং ইহা নিঃসন্দেহে গ্রাম বাংলায় আপামর জনসাধারণের কাছে বীমার সুফল পৌঁছে দিতে সক্ষম।

বিশেষ সুবিধাবলী

(১) প্রিমিয়ামের হার অন্যান্য পলিসির চেয়ে তুলনামূলকভাবে খুব কম।

(২) এই পরিকল্পনায় সর্বোচ্চ ২০,০০০.০০ টাকা পর্যন্ত পলিসি দেয়া হয়।

(৩) সাধারণতঃ ডাক্তারী পরীক্ষাবিহীন বীমার আওতায় এই পলিসি দেয়া হয় বলে বীমাগ্রাহকের প্রবেশকালীন বয়স সর্বোচ্চ ৪০ বছরে সীমিত থাকবে। বয়সের সন্তোষজনক প্রমাণপত্র প্রস্তাব পত্রের সাথে অবশ্যই প্রদেয়।

(৪) এই পলিসির প্রিমিয়াম বার্ষিক, ষান্মাসিক ও ত্রৈমাসিক কিস্তিতেও দেয়া যায়।

(৫) দু-বছর চালু থাকার পর বীমাগ্রাহক পরবর্তী কোন প্রিমিয়াম সময়মত পরিশোধ করতে ব্যর্থ হলেও পলিসি তামাদি হবে না। সম্প্রসারিত সাময়িক বীমার (Extended Term Insurance) সাহায্যে দেয় তারিখ থেকে পরবর্তী বারো মাস ঝুঁকি বলবৎ থাকবে এবং এই সময়ের মধ্যে বীমাগ্রাহক সুদসহ বকেয়া প্রিমিয়াম দিয়ে বীমাপত্র চালু করে নিতে পারবেন। এই বর্দ্ধিত সময়ের মধ্যেও বীমাগ্রাহক সুদসহ বকেয়া প্রিমিয়াম দিতে ব্যর্থ হলে পলিসি আপনাহতেই পরিশোধিত বীমায় রূপান্তরিত হবে।

(৬) অন্যান্য জীবন বীমা পলিসির মত এই বীমার জন্য দেয় প্রিমিয়ামের উপরও আয়কর রেয়াত পাওয়া যায়।

(৭) শহরে বসবাসকারী স্বল্পতম আয়ের মানুষও এ পরিকল্পনার সুযোগ নিতে পারেন।

(৮) এই তালিকায় বড় অংক এবং প্রিমিয়াম দেয় পদ্ধতির উপর কোন প্রকার রিবেট দেয়া হয় না।

(৯) ত্রৈমাসিক কিস্তিতে প্রিমিয়াম দেয়া হলে হাজার প্রতি অতিরিক্ত ০.৫০ টাকা ধার্য করতে হবে।

(১০) লাভ হিসেবে বোনাস দেয়া হয়।

(১১) নতুন ফসল উঠার পর হাতে নগদ টাকা একসাথে এলে যে কোন কৃষিজীবী মানুষ সহজেই পলিসি নিতে পারেন


Share with :

Facebook Facebook